এটিএন নিউজে এম মিরাজ হোসেন

বিশ্বের যেকোনাে দেশের ভাষা-সাহিত্য-সংস্কৃতির বিস্তার ও বিকাশে বইমেলার রয়েছে অনন্য ভূমিকা । আধুনিক রুচিশীল মানুষ তাদের চিন্তা ও মননের সঙ্গী হিসেবে বেছে নিয়েছে বইকে। তাই সংস্কৃতির বিকাশে বইমেলা হয়ে উঠেছে। অন্যতম আধুনিক মাধ্যম। সমাজের সবধরনের মানুষের মধ্যে ব্যবধান ঘুচিয়ে একই প্লাটফর্মে একই প্রাণের উৎসবে বইমেলা মাতিয়ে তােলে সবাইকে। বাঙালির জাতীয় জীবনেও বইমেলা একটি সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য, একটি অনন্য উৎসব।

বইয়ের মাধ্যমে বিশ্বের নানা জ্ঞানী ও পণ্ডিত ব্যক্তির চিন্তাচেতনা, অভিজ্ঞতা-উপলব্ধি, দর্শন-ভাবনা ইত্যাদির সাথে পরিচিত হওয়া যায়। বইমেলা এ দুর্লভ সুযােগ সৃষ্টির অনন্য মাধ্যম। বিচিত্র গ্রন্থের সমাবেশ ঘটানাে
বইমেলার অন্যতম বৈশিষ্ট্য। তাই বইমেলা বইপ্রেমিকদের গুরুত্বপূর্ণ আশ্রয়। বইমেলাকে কেন্দ্র করে প্রকাশিত হয় নতুন নতুন বই, পত্র-পত্রিকা। ক্রেতার চাহিদা পূরণের জন্যে কালােত্তীর্ণ বইয়ের পুনঃপ্রকাশ ঘটে। লেখক ও পাঠকের সম্মুখ ও সরাসরি যােগাযােগের মাধ্যমে ভাব-বিনিময়ের সুবর্ণ সুযােগ পাওয়া যায়।

হাজারো পাঠক-লেখকের মিলনমেলা একুশে বইমেলা। সারা মাস বইপ্রেমী পাঠক, লেখক, আর প্রকাশকদের পদচারনায় মুখরিত হয়ে থাকা একুশে বইমেলা এখন শেষের পর্যায়ে।

এবারের মেলায় এখন পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ৩ হাজার নতুন বই প্রকাশিত হয়েছে। অসংখ্য বইয়ের মধ্যে পাঠকমহলে জনপ্রিয়তা পেয়েছে যে বইগুলো তার মধ্যে অন্যতম নবীন লেখক এম মিরাজ হোসেনের “আপন নামা“। আত্মজীবনীমূলক এই বইটিতে লেখকের জীবনের রুঢ় বাস্তবতার গল্প উঠে এসেছে। তার শৈশব, কৈশোর, জীবনের সংগ্রাম, প্রচেষ্টা, বড় হওয়ার মনবাসনা, সুখ-দুঃখ, সাফল্য, ব্যার্থতা বিষয়গুলো অকপটে লিখেছেন তার এই বইটিতে।

মানুষ জীবনকে জানতে চায়, বুঝতে চায়, সামনে এগিয়ে যাবার প্রেরণা পেতে চায়। এম মিরাজ হোসেনের লেখা এই বইটি তাই বিভিন্ন বয়সের পাঠক মহলে প্রশংসিত হয়েছে। এবারের একুশে বইমেলায় বইটি প্রায় ৮ হাজার কপি বিক্রি হয়েছে। বইটির প্রকাশনী প্রতিষ্ঠান নওরোজ কিতাবিস্তানের ৭৮ বছরের ইতিহাসে সর্বোচ্চ বিক্রীত বইয়ের খেতাব পেয়েছে।

যারা এখনো বইটি পড়েননি তারা নির্দিধায় বইটি পড়ে দেখতে পারেন। আশা করি বইটি আপনাদের হতাশ করবে না।

এম মিরাজ হোসেনের সাথে যোগাযোগ করতে পারেনঃ

Facebook, Twitter, Instagram, LinkedIn, iTunes, Spotify

সূত্রঃ এটিএন নিউজ 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.